Breaking News

মাত্র ১৮ বছর বয়সেই কয়েক কোটি টাকা মূল্যের কোম্পানির মালিক এই তরুণ,রতন টাটা নিজেই কেনেন ৫০% এই কোম্পানি শেয়ার

মোদি সরকার দেশের যুবকদের আত্ম-কর্মসংস্থান শুরুর জন্য প্রতিনিয়ত আবেদন করেছেন। তিনি কমাগত ডিজিটাল ইন্ডিয়ার ওপর জোর দিয়েছেন। বিজনেস স্টার্টআপ এর পরে অনেক লোক নতুন আইডিয়া ব্যবসা শুরু করেছে। দেশের আগামী প্রজন্মকে মোদি জি সব সময় নতুন কিছু করার জন্য উদ্বুদ্ধ করে এসেছেন। তাই এর মধ্যে দেখা গেছে, মুম্বইয়ের এক 18 বছর বয়সী তরুণ উদ্যোক্তা অর্জুন দেশপাণ্ডেও নতুন আইডিয়া
নিয়ে শুরু করেছিল ব্যবসা ।

এখন এই ব্যবসার বার্ষিক আয় 6 কোটিতে পৌঁছেছে। বিজনেস টাইকুন রতন টাটাও তার আইডিয়াতে অনুপ্রাণিত হয়েছেন এবং উচ্ছ্বসিত হয়ে ব্যবসায় শুরুতে সেই যুবকের কোম্পানিতে রতন নিজে বিনিয়োগ করেছেন এবং বৃহস্পতিবার তার শেয়ারের ৫০ শতাংশ কিনেছেন তিনি। দু’বছর আগে তার পরিবারের সাহায্যে শুরু করেছিলেন অর্জুন নতুন ব্যবসা। তিনি জেনেরিক আধার
নামে একটি অনন্য ওষুধের খুচরা চেইন শুরু করেছিলেন।

অন্যান্য অনলাইন ফার্মেসী এবং অ্যাপ্লিকেশনগুলির চেয়ে পৃথক যা প্রচুর সংখ্যক ইন্টারনেটে সারা ফেলেছে।শুরুতে ধারণা ‘জেনেরিক আধার’ অনন্য ফার্মাসি অ্যাগ্রিগেটর ব্যবসায়ের মডেলের উপর ভিত্তি করে তৈরি।জেনেরিক আধার জেনেরিক ওষুধগুলি সরাসরি উত্পাদনকারীদের থেকে গ্রহণ করে এবং বিভিন্ন শহরে কে তোদের চাহিদামত অর্ডার বুক করে তা সঠিক সময় ন্যায্য মূল্যে তাদের কাছে পৌঁছে দেয়া হয় ।

এই সংস্থার আরেকটি আকর্ষণীয় ব্যাপার হল বাজারে চলতি ওষুধ বাজারমূল্যের চেয়ে ওষুধগুলি সহজলভ্য করে কারণ এটি পাইকারদের ২০ শতাংশের ছাড় দেয়া হয়। অর্জুন দাবি করেছে যে এখন পর্যন্ত কোম্পানির আয় বার্ষিক 6 কোটিতে পৌঁছেছে একই সঙ্গে, দেশপাণ্ডে আগামী তিন বছরে এই উপার্জনকে 150 থেকে 200 কোটিতে পৌঁছে নিয়ে যাওয়ার লক্ষ্য নিয়েছে জেনেরিক বেসের লক্ষ্য জনসাধারণের কাছে সাশ্রয়ী মূল্যে ওষুধ সরবরাহ করা।

এই সংস্থা এখন পর্যন্ত মুনাফা শেয়ার এর বিনিময়ে ভিত্তিতে মুম্বই, পুনে, বেঙ্গালুরু এবং ওড়িশায় ৩০ টি খুচরা বিক্রেতাদের সাথে যোগ দিয়েছে। সংস্থায় বর্তমানে ৫৫ জন কর্মচারী রয়েছে এর মধ্যে ফর্ম্যাসিস্ট, আইটি ইঞ্জিনিয়ার এবং বিপণন পেশাদার রয়েছে।সংস্থাটি বর্তমানে কেবলমাত্র ডায়াবেটিক এবং হাই ব্লাড প্রেসার ওষুধ সরবরাহ করে তবে সংস্থাটি শীঘ্রই বাজারের দামের চেয়ে কম দামে ক্যান্সারের ওষুধ সরবরাহ করবে।

রতন টাটা বিনিয়োগ করেছে।আঠারো বছরের কোম্পানির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা অর্জুন বলেছেন যে তিন-চার মাস আগে তিনি তাঁর স্টার্টআপের ধারণাটি রতন টাটার সামনে রাখার ধারণা পেয়েছিলেন এবং তিনি তা খুব গুরুত্বের সাথে শুনেছিলেন দেশপাণ্ডে বলেছেন যে ‘রতন টাটা স্যার যখন আমার ব্যবসায়িক পরিকল্পনার কথা জানতে পেরেছিলেন তখন তিনি খুব অভিভূত হয়েছিলেন এবং এই মিশনের অংশ হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন।তিনি প্রতিটি ভারতীয়কে জেনেরিক বেস আনতে সহায়তা করেছিলেন।’বলা হচ্ছে রতন টাটা বেসরকারীভাবে বিনিয়োগ করেছে,টাটার গ্রুপের সাথে এর কোনও যোগসূত্র নেই।

About admin

Check Also

গার্লফ্রেন্ডের উৎসাহ তে আজ IPS অফিসার হলেন, ক্লাস 12th ফেল এই ট্রাক ড্রাইভার।

এক সময় ধনী ব্যক্তিদের বাড়ির কুকুর দেখাশোনা, আবার কখনো ট্যাম্পো চালাতেন, প্রেমিকার উৎসাহে আজ আইপিএস …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *