Breaking News

মহিলারা রাতে কখনই এই কাজগু’লি কখনোই করবেন না, তাহলে বাড়িতে অর্থের অভাব কোনোদিন থাকবে না।

ভারতীয় পরিবারে এমন কিছু সংস্কার রয়েছে যা প্রাচীনকাল থেকে চলে আসছে। বাড়ির বয়স্ক মানুষেরা তা মেনে এসেছে। কিন্তু বর্তমানকালে আধুনিকতা প্রতিটি ক্ষেত্রে এমনভাবে সমাজে প্রবেশ করছে যে সেই সমস্ত সংস্কার, পরম্পরা, রীতিনীতি, নিয়মকানুন কুসংস্কারের অজুহাতে ক্রমশ দূরে সরে যাচ্ছে।

তাই বর্তমান সমাজের প্রায় প্রতিটি ঘরে সংসারের জন্য ভালোবাসা, নিজের লোকেদের প্রতি দায়িত্ববোধ , মমত্ববোধ, কর্তব্যবোধ আর থাকছে না। আগে বাড়ির একজন রোজগার করলে সেই টাকা দিয়েই পুরো সংসার চলতো আর এখন বাড়ির অনেকে মিলে রোজগার করেও সংসারের সব চাহিদা পূরণ করতে পারছে না, কিছু না কিছু অভাব থেকেই যাচ্ছে।মহিলারা রাতে ঘুমানোর আগে যদি এই কাজগু’লি করেন তাহলে সেই ঘরে কখনো লক্ষী থাকবে না। তাই ভুলেও এই কাজগু’লি করবেন না। আসুন জেনে নেয়া যাক কাজগুলি কি কি??

(১)সদর দরজার সামনে কখনো নোংরা রাখবেন না বা ফেলবেন না। যদি আপনি এরকম করেন তাহলে পাড়া পড়শিদের সাথে সম্পর্ক খারাপ হয়ে যেতে পারে, শুধু তাই নয় দেখতেও খারাপ লাগে। এরফলে মা লক্ষী বাড়িতে প্রবেশ করতে পারেন না এবং জায়গাটি অশুভ শক্তির আশ্রয় স্থান হয়ে ওঠে সাথে নেগেটিভ এনার্জি সহজে প্রবেশ করতে পারে।

(২)সূর্য ডোবার পর তুলসী গাছ ছোবেন না এবং কখনো তুলসী পাতা সূর্যাস্তের পর তুলবেন না। আপনি যদি এরকম কিছু করেন তাহলে আপনি নিজেই আপনার দুর্ভাগ্য ডেকে আনবেন। তুলসী গাছ সূর্যাস্তের পর স্পর্শ করলে মা লক্ষী অসন্তুষ্ট হন। ফলে সেই বাড়ি থেকে মুখ ফিরিয়ে নেন।

(৩)সন্ধ্যার পর দুয়ার পরিষ্কার করবেন না অর্থাৎ বাড়িতে ঝাঁটা দেবেন না। এই সময় ঘর দুয়ার পরিষ্কার করলে মা লক্ষী অসন্তুষ্ট হন। বাস্তুশাস্ত্র অনুসারে, এই সময় ঘর দর পরিষ্কার করলে বাড়ির ইতিবাচক শক্তি বাড়ির বাইরে চলে যায়। গোলে আপনাকে প্রবল অর্থ কষ্টে পড়তে হতে পারে।

(৪)সূর্য ডোবার সময় বাইরের কোন ব্যক্তি যদি দুধ বা দই চাইতে আসেন অর্থাৎ বাড়ির মহিলাদের কাছে তাহলে তা কখনোই দেবেন না। কথাটি খেয়াল রাখবেন এরকম কিছু করলে বাড়ির লক্ষী বাইরে চলে যাবে এবং তার সঙ্গে বাড়ির সমস্ত পজিটিভ শক্তি ও চলে যাবে। ফলে আপনার জীবনে গভীর সং’কট নেমে আসবে।

(৫)আপনার বাড়িতে যদি বৈভব, ঐশ্বর্য ও অপার সুখ শান্তি চান তাহলে রাতে শোওয়ার আগে নোংরা বাসনপত্র ও রান্নাঘর অবশ্যই পরিষ্কার করে নেবেন। অপরিস্কার বাসনপত্র ও রান্নাঘর থাকলে শনিদেবের কুদৃষ্টি বাড়ির ওপর পরে। তাছাড়া এইসব নোংরা থাকলে বাড়িতে নেগেটিভ এনার্জি এবং রোগ জীবাণু ও ছড়িয়ে পড়তে পারে।

(৬)রাতে কাউকে চাল দেবেন না। সূর্য ডোবার পর আপনার কাছে যদি কেউ চাল চাইতে আসেন তাহলে তা ভুল করেও দেবেন না, কারণ সমস্ত দেবতার প্রিয় জিনিস “চাল”। বিভিন্ন দেবতার পূজায় কোন না কোন জিনিস নিষিদ্ধ থাকে । কিন্তু চাল সব দেবতার পুজায় লাগে। তাই রাতে চাল প্রদান করলে সমস্ত দেবতা কু’পিত হন এবং সৌভাগ্য আপনাকে ছেড়ে চলে যাবে।

(৭)রাতে মহিলারা চুল খোলা ঘুমাবেন না। খোলা বহুল নেগেটিভ এনার্জি কে প্রবল ভাবে আকর্ষিত করে, ফলে ঘরের পজিটিভ এনার্জি তার কারণে বাইরে চলে যায় । ফলে মা লক্ষী আর থাকতে পারেন না।বাড়ির মহিলারা এই নিয়ম গুলি মেনে চলুন, আপনার বাড়িতে আসবে অনেক অনেক টাকা, বৈভব, ঐশ্বর্য ও সম্পদ।

About admin

Check Also

রাতে রুটি খান ? তাহলে এই বিষয় গুলি মাথায় রাখবেন নাহলে বিপদে পড়তে হবে ।

রুটি মানুষের গুরুত্বপূর্ণ প্রয়োজনীয় বস্তু। কারণ ক্ষুধা মানুষের কাছ থেকে ঠিক এবং খারাপের পার্থক্য কেড়ে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *