Breaking News

সকালবেলা ঘুম থেকে উঠে এই ৫ টি কাজ একদম করবেন না , না হলে আপনার জীবনে দুর্ভাগ্য ফিরে আসবে

সকালবেলা হল দিনের শুরু। দেখবেন দিনের শুরু টা যেন ভালো হয়, যা খুব গুরুত্বপূর্ণ সময়। সারাদিনের ক্লান্তি দূর করার পর নতুন করে লড়াইয়ের প্রস্তুতি নেওয়া হয় এই সকালবেলা। সকাল যতটা মধুর হবে সারাদিনটা ততটাই ভাল কাটবে।

বাস্তুশাস্ত্র মতে দৈনন্দিন জীবনে আমাদের বাসস্থান বা আমাদের আসবাবপত্র থেকে অনেক সুফল ও কুফল পাওয়া যায়। আমাদের অজান্তেই আমরা এমন কিছু করে থাকি যা আমাদের জীবনের ওপর কুপ্রভাব ফেলে। আমাদের অভ্যাসের ওপরে ভিত্তি করেই জীবনে সুখ ও দুঃখ নেমে আসে।

১) সকালে ঘুম থেকে উঠে হিং’সাত্মক বা কোনও নেগেটিভ চিন্তা মূলক ছবি দেখা উচিত নয়। এতে জীবনে দুর্ভাগ্য নেমে আসতে পারে।ঘুম থেকে উঠে সব সময় ভালো চিন্তা করা উচিৎ। পজেটিভ থাকা উচিত। এতে সারা দিনে কর্ম ক্ষেতে কোনো বাধার সৃষ্টি হয় না। মনে সারাদিন পজেটিভ এনাজির সঞ্চয় হবে।যে কোনো শুভ কাজে তাড়াতাড়ি সফল হয়।

২)অনেকের অভ্যাস আছে, সকালে উঠে নিজের মুখ আয়নায় দেখা। এটা করা একদমই উচিত নয়। কারণ আমরা রাতে যখন ঘুমতে যাই, তখন আমাদের চারপাশে অনেক নেগেটিভ এনার্জি ঘুরে বেরায়। তাই রাতে আমরা খারাপ স্বপ্ন দেখি। সকালে আয়না দেখলে সেই চিন্তা ভাবনাগুলো নিজের দিকে প্রতিবিম্বিত হবে। এই কারণেই বাস্তুমতে বিছানার সোজাসুজি আয়না রাখতে নেই।

৩) সকালবেলা ঝাঁটা এবং খালি কলসি বা বালতি, অর্থাৎ খালি জলের পাত্র দেখতে নেই। এটা জীবনে কু বার্তা বয়ে নিয়ে আসে। সারাদিন মেজাজ খিটখিটে থাকে। সংসারে অমঙ্গল ডেকে আনে। গৃহে অশান্তি লেগেই থাকে। ঝাঁটা খালি কলসি নেগেটিভ শক্তির সঞ্চার করে। এই জিনিস গুলো বাড়ির যেখানে সেখানে রাখবেন না যাতে ঘুম থেকে উঠে নজরে পড়ে।

৪) সকালবেলা অনেকে মুখ না ধুয়ে বেড টি খাওয়ার অভ্যাস আছে।এটি শরীরের ক্ষতি করে এবং বিছানার মধ্যে চা খাওয়ার অভ্যাসও আপনার দিন খারাপ করার জন্য যথেষ্ট। ৫) অনেকেরই অভ্যাস, সকালে উঠে;অন্যকে শুভ সকাল জানানোর জন্য;মোবাইল দেখা, যা একদমই দেখা ভাল নয়। কারণ মোবাইলে পজিটিভ ছবির সঙ্গে নেগেটিভ অনেক ছবিও থাকে যা দেখলে আপনার সারা দিনটা খারাপ ভাবে কাটার আশঙ্কা থাকে।

About admin

Check Also

রাতে রুটি খান ? তাহলে এই বিষয় গুলি মাথায় রাখবেন নাহলে বিপদে পড়তে হবে ।

রুটি মানুষের গুরুত্বপূর্ণ প্রয়োজনীয় বস্তু। কারণ ক্ষুধা মানুষের কাছ থেকে ঠিক এবং খারাপের পার্থক্য কেড়ে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *