Breaking News

উচ্চমাধ্যমিকে কেমিস্ট্রিতে পেয়েছিলেন মাত্র ২৪ নাম্বার, আজ তিনি IAS পরীক্ষার টপার! নিজের উচ্চ মাধ্যমিকের রেজাল্ট সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করলেন এই Ias অফিসার

জীবনের সবথেকে বড় পরীক্ষা মাধ্যমিক। এর পরের ধাপ ই হলে উচ্চ মাধ্যমিক। এই দুটি পরীক্ষায় ভালো নম্বর ভবিষ্যতের ভালো ক্যারিয়ার গড়ার রাস্তা খুলে দেয়। অনেকেই এই পরীক্ষায় প্রত্যাশিত নম্বর পায়, অনেকেই পায় না।আজ ওয়েস্ট বেঙ্গল বোর্ডের মাধ্যমিক পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে। এর আগেই সিবিএসaই আইসিএসই বোর্ড এর মাধ্যমিক পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়ে গেছে। আগামী দিনে প্রকাশিত হবে উচ্চ মাধ্যমিকের ফল।

পুরো সপ্তাহ জুড়ে মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিকের ফল প্রকাশ হচ্ছে বা হবে। কেউ কেউ প্রত্যাশিত নম্বর পেয়েছে, কেউবা করতে পারেনি ভালো নম্বর। জীবনের প্রথম পরীক্ষা তে মুখ থুবড়ে পড়ে হয়তো হতাশ হয়েছে বহু ছাত্র-ছাত্রীই।নম্বরের দৌড়ে পিছিয়ে পড়া ছাত্র ছাত্রীদের উদ্দেশ্যেএকেবারে অন্য রকমের একটি পোস্ট নিজের ট্যুইটার অ্যাকাউন্টে দিলেন ইউপিএসসি টপার তথা আইএএস অফিসার নিতিন সাঙ্গওয়ান।

তিনি তার টুইটার একাউন্টে নিজের সি বি এস ই উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার রেজাল্ট ছবি দিয়েছেন। যেখানে দেখা যাচ্ছে, তিনি রসায়নে পেয়েছেন মাত্র ২৪ নম্বর,অর্থাৎ যা কিনা পাস নাম্বারের থেকে মাত্র একটি নাম্বার বেশি। রেজাল্টের দিক থেকে পিছিয়ে পড়া ছাত্র-ছাত্রীদের মানসিকভাবে জোর দেওয়ার জন্য তার এই টুইট।তিনি তার টুইটারে লিখেছেন,”দেখো আমি আমার উচ্চমাধ্যমিকে কত কম নাম্বার পেয়েছি, তাও কখনো জীবনে ভেঙে পড়িনি। জীবন আমাদের অনেক পরীক্ষার সম্মুখীন করে, সেখানেই ছোটখাটো নম্বর দিয়ে আমাদের বিচার করা যায় না। খারাপ রেজাল্ট এর মধ্যে দিয়েও নিজেকে আর একবার খুঁজে নেবার চেষ্টা করো।

নিতিনের মতোই নিজের ইংরেজি নিয়ে পুরানো সমস্যা, অসুবিধার কথা জানিয়েছেন আইএফএস অফিসার প্রবীণ কাসওয়ান। ট্যুইটারে প্রবীণ কাসওয়ান লিখেছেন, “আমারও ইংরেজিতে একই দশা হয়েছিল। আজও হড়কে যাই! আজও ভালোভাবে ইংরেজি বলতে পারি না। কিন্তু তার জন্য আমার জীবন থেমে থাকেনি”।জীবনের পথে নিজেকে যোগ্য করার ক্ষমতা থাকলে সামান্য নম্বর কখনো কাউকে থামিয়ে রাখতে পারেনা, এর প্রমাণ আমরা আগেও বহু বার পেয়েছি।

About admin

Check Also

শারীরিক ভাবে প্রতিবন্ধী হয়েও 60 জন দরিদ্র শিশুকে বিনামূল্যে শিক্ষাদান করেন ইনি, শুধু লাঠিতে ভর করে টিউশন পড়াতে যান।

সমাজে নিজের যোগদান দেওয়ার কথা উঠলেই বেশিরভাগ মানুষই কোনো না কোনো বাহানায় পিছু হাটতে চান। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *