Breaking News

কানে শুনতে পায়না, ছোট বেলায় শ্রবন শক্তি হারিয়ে ফেলেছে,4 মাস প্রস্তুতি নিয়ে ইউপি এস সি পরীক্ষার 7 সপ্তম স্থান পেয়ে আই এ এস হলেন মেয়েটি

কোনো কাজকে যদি মন থেকে করা যায় তবে সেই কাজে সফলতা নিজে থেকেই আসে। আজ আমরা এমন এক আইএএস অফিসারের কথা বলব যিনি নিজের সকল প্রতিবন্ধকতা কে হারিয়ে সফল হয়ে দেখিয়েছেন। ছোটবেলায় শ্রবণ শক্তি হারিয়ে ফেলা এই সৌম্যা শর্মার আইএএস অফিসার হয়ে ওঠার কাহিনি আজ আমরা আপনাদের বলব। দিল্লির বাসিন্দা সৌম্যা শর্মা এক মধ্যবিত্ত পরিবারে বেড়ে উঠেছেন। তার বাবা-মা উভয়ই ডাক্তারি পেশার সাথে যুক্ত।

ছোট থেকেই সৌম্যা পড়াশোনায় ভালো ছিলেন। তাই হাই স্কুল আর ইন্টারমিডিয়েট এর পরীক্ষায় ভালো স্কোর নিয়ে পাস করেন। কিন্তু খুব ছোট বয়সেই সৌম্যা নিজের শ্রবণ শক্তি হারিয়ে ফেলেন। তার শ্রবণশক্তি প্রায় আশি থেকে নব্বই শতাংশ কমে যায়। এরপর তাকে সাউন্ড এমপ্লিফায়ার এর সাহায্য নিতে হয়। স্কুল পাশ করার পর 2017 সালে তিনি দিল্লির ন্যাশনাল ল ইউনিভার্সিটি থেকে এলএলবি পাস করেন। এলএলবি করার সময়ই তার মনে ইউপিএসসি পরীক্ষা দেওয়ার ইচ্ছা জাগে।

তাই তিনি তখন ইউপিএসসি পরীক্ষার প্রস্তুতি নেওয়া শুরু করে দেন। সৌম্যা শর্মা ইউপিএসসি পরীক্ষায় না শুধু টপ করেন তিনি মাত্র চার মাসের প্রস্তুতিতে প্রিলিম্স এর পরীক্ষাতেও কোয়ালিফাইড হন। তিনি পরীক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন ইউপিএসসির মতো বড় পরীক্ষার প্রস্তুতির সময় চেষ্টা করবেন যত বেশি সম্ভব রিভিশন করার। এছাড়াও স্টাডি মেটেরিয়াল চয়েজ করার সময় খুব সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে। আর জেনারেল নলেজ এর জন্য প্রতিদিন খবরের কাগজ পড়াই যথেষ্ট।

সৌম্যার অপশনাল সাবজেক্টে ল থাকায় তার খুব একটা অসুবিধা হয়নি। ইউপিএসসি পরীক্ষার দিন সৌম্যার ভাইরাল ফিভার ছিল। জ্বরের তাপমাত্রা এতই বেশি ছিল যে পরীক্ষা দেওয়ার সময় সৌম্যার চোখের সামনে অন্ধকার হয়ে যাচ্ছিল। তবুও সৌম্যা হার মানেননি তিনি চকলেট খেয়ে পরীক্ষা দিয়েছেন। 2017 সালের ইউপিএসসি পরীক্ষায় সৌম্যা সপ্তম স্থান পান। সৌম্যার এই সাফল্য আজ সেইসব যুবক যুবতীদের জন্য অনুপ্রেরণা যারা হেরে যাওয়ার ভয়ে লড়তে চান না।।

About Web Desk

Check Also

“যারা হিজড়া বলে মজা করত তারাই এখন তাকে স্যালুট করে”, কঠোর পরিশ্রমে শিবন্যা আজ সাব-ইন্সপেক্টর

যদিও দেশের সর্বোচ্চ আদালত সমকামিতাকে মর্যাদা দিয়েছে কিন্তু এলজিবিটি কিউ আজ পর্যন্ত সমাজে সমতার মর্যাদা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *