Breaking News

মডেল হয়ে সফলতা অর্জন করেও, IAS অফিসার হলেন এই সুন্দরী যুবতী..

আজকাল বেশিরভাগ শিক্ষার্থী কোচিং ইনস্টিটিউটে যোগ দেয় পরীক্ষার প্রস্তুতির জন্য। যার মধ্যে রয়েছে ইউ.পি.এস.সি অন্যতম। যদিও ইউ.পি.এস.সি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার জন্য প্রার্থীরা ভালো কোচিং এ যোগ দেয় কিন্তু তারপরেও সাফল্য অর্জন করতে অনেক বছর লেগে যায়। এর মধ্যে কিছু প্রার্থী আছেন যারা তাদের প্রথম চেষ্টাতেই মাত্র 10 মাসে কোচিং ছাড়াই বাড়িতে প্রস্তুতি নিয়ে উত্তীর্ণ হন। এর মধ্যে রয়েছে ঐশ্বর্য শ্যাওরন এর নাম।

সে রাজস্থানের বাসিন্দা। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে ঐশ্বর্য ইউ.পি.এস.সি পরীক্ষা দেওয়ার আগে মডেলিং করতেন। তিনি বলেন যে মডেলিংয়ে তার আগ্রহ ছিল কিন্তু ইউ.পি.এস.সি পরীক্ষা তার একটি লক্ষ্য ছিল। 2016 সালে ঐশ্বর্য ‘ফেমিনা মিস ইন্ডিয়া’ ফাইনালিস্ট হয়েছিলেন। 2015 সালে ঐশ্বর্য ‘মিস দিল্লি’র খেতাব জিতেছিলেন। এছাড়াও 2014 সালে তিনি দিল্লির ‘ক্লিন এন্ড ক্লিয়ার ফ্রেশ’ হয়েছিলেন। ঐশ্বর্য মূলত রাজস্থানের কিন্তু তার পরিবার শুরু থেকে দিল্লিতে থাকে।

তিনি চাণক্যপুরীর সংস্কৃতি বিদ্যালয় থেকে প্রাথমিক শিক্ষা গ্রহণ করেন। এরপর তিনি দিল্লির শ্রীরাম কলেজ অফ কমার্স থেকে স্নাতক সম্পন্ন করেন। 2018 সালে ঐশ্বর্য ইউ.পি.এস.সি এর প্রস্তুতি শুরু করেন এবং তার প্রথম প্রচেষ্টাতেই তিনি সফল হন। ইউ.পি.এস.সি-র আগে ঐশ্বর্য আই.আই.এম ইন্দরেও নির্বাচিত হয়েছিলেন কিন্তু সে ভর্তি হয়নি কারণ তার লক্ষ্য ছিল সিভিল সার্ভিস পরীক্ষা। ঐশ্বর্যের বাবা অজয় শেওরান ভারতীয় সেনাবাহিনীতে কর্নেল পদে তেলেঙ্গানায় কর্মনিয়োগে আছেন। ঐশ্বর্য সপরিবারে মুম্বাইয়ে থাকেন। রাজস্থানের ঐশ্বর্যর সাফল্যের গল্প সবাইকে অনুপ্রাণিত করে।

About Web Desk

Check Also

“যারা হিজড়া বলে মজা করত তারাই এখন তাকে স্যালুট করে”, কঠোর পরিশ্রমে শিবন্যা আজ সাব-ইন্সপেক্টর

যদিও দেশের সর্বোচ্চ আদালত সমকামিতাকে মর্যাদা দিয়েছে কিন্তু এলজিবিটি কিউ আজ পর্যন্ত সমাজে সমতার মর্যাদা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *