Breaking News

করিনা কাপুর কে মা বলে মানেন না সারা আলি খান, জেনেনিন সৎ মায়ের সাথে কেমন সম্পর্ক সারার

সাইফ আলী খানের স্ত্রী কারিনা কাপুর খান দ্বিতীয়বার মা হয়েছেন এবং সাইফ আলী খানের কথা বলতে গেলে চতুর্থ বারের মতন বাবা হলেন। তার প্রথম স্ত্রী অমৃতা সিংয়ের সন্তান ইব্রাহিম এবং সারা আলি খান। সাইফ এর প্রথম স্ত্রীর সন্তান এবং কারিনা কাপুর এর মধ্যে সম্পর্ক কেমন এই ব্যাপারে মানুষ সবসময় কৌতুহলী থাকে। এক সাক্ষাৎকারে সারা আলি খান বলেছিলেন যে তিনি কারিনা কাপুরকে মা বা ছোটমা বলেন না। করণ জোহরের শুটের সরালি খানের বিষয়ে বলেছিলেন,

‘আমি যদি কখনো কারিনাকে ছোটমা বলি সেভাবে হতবাক হয়ে যাবে।’ তাহলে তিনি করেনা কাপুর কে কি বলে ডাকবেন? এর উত্তরে সারা আলি খান বলেছিলেন যে, ‘আমি শুধু তাকে কারিনা বলি।’ কারিনা কাপুরে একবার তার সম্পর্কে কথা বলেছিলেন, ‘আমি সবসময় সাইফিয়া বলেছি যে আমি সাড়া এবং ইব্রাহিমের বন্ধু হতে চাই। আমি কখনোই তাদের মা হতে পারবোনা কারণ আমার আগেই তাদের একটি অসাধারন মা আছে যিনি তাদের লালন-পালন খুব সুন্দর ভাবে করেছেন।

আমি তাদের কাছে বন্ধুর মতন এবং যখনই তাদের উভয়ের কোন কিছুর প্রয়োজন হবে আমি তাদের সাথে আছি এবং জীবনের যেকোনো মুহূর্তে আমি তাদের সঙ্গে আছি।’ সারা আলি খান করিনা সঙ্গে তার সম্পর্ক সম্পর্কে বলেছিলেন যে তিনি আমার কাছে বাবা স্ত্রীর মতো। আমার বন্ধুর মতন কিন্তু তারচেয়েও বেশি সেবা বা স্ত্রী। আমি তাকে সম্মান করি এবং জানি যে আমার বাবা তার সাথে খুশি।আমরা একই প্রেশার অন্তর্গত।

সারা আলি খান বলেছিলেন যে মনকে আমার বাবাও কারিনার সম্পর্কে আমাদের কখনো বলেনি যে তিনি আমাদের দ্বিতীয় মা। কোন বিষয় হল মানুষ যা চায় তার জন্য অন্যকে সম্মান করতে হয়। কারিনা কাপুরের সঙ্গে সারা আলি খান এবং ইব্রাহিমের ভালো বন্ধন আছে। অনেকবার সবাইকে পারিবারিক ছবিতে একসঙ্গে দেখা যায় সাইফ আলি খান এবং অমৃতা সিং 1991 সালে বিয়ে করেছেন এবং 2004 সালে উভয়ের বিবাহবিচ্ছেদ হয়েছিল। অমৃত সিং তখন থেকে অবিবাহিত কিন্তু সাইফ আলি খান 2012 সালে কারিনা কাপুরকে বিয়ে করেছিলেন।।

About admin

Check Also

23 বছরের এই ভাই-বোনের জুটি 1 লাখ টাকা ইনভেস্ট করে যে অভিনব উপায়ে আজ 800 কোটি টাকার ব্যবসা দার করান, জানলে আপনিও অনুপ্রাণিত হবেন

একটি মেয়ে তার ভাইয়ের সাথে মিলে নিজেদের পরিবারকে সফলতার সেই শিখরে পৌঁছাতে সক্ষম হয়েছেন যা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *