এই সাধারণ জিনিসেই বদলায় জীবন, ফটকিরির একটা টুকরোই পাল্টে দিতে পারে ভাগ্য

সবার জীবনই নানা সমস্যায় ভরা। কেউ কেউ সমস্যা নিয়ে রীতিমতো জর্জরিত থাকেন। এমন পরিস্থিতিতে এই টোটকা মেনে দেখতেই পারেন। বাস্তুশাস্ত্রের এই বিধান কাজে লাগতেও পারে।বিভিন্ন জনের ক্ষেত্রে বিভিন্ন গ্রহ শুভ ও অশুভ প্রভাব বিস্তার করে বলেই বিশ্বাস। তেমনই অশুভ বাস্তুর প্রভাবেও জীবনে উন্নতি ও বাধার সৃষ্টি হয় বলে দাবি বাস্তুশাস্ত্রের। জ্যোতিষ ও বাস্তুশাস্ত্রকারদের অনেকের মতে, সামান্য ফটকিরিও নেতিবাচক বা অশুভ শক্তির প্রভাব কমিয়ে, বাধা কাটিয়ে জীবনে উন্নতির পথ প্রশস্ত করে।জেনে নেওয়া যাক ফটকিরি ব্যবহার করে কী ভাবে সমস্যার সমাধান সম্ভব বলে জানিয়েছে বাস্তুশাস্ত্র—

১) আপনি যথাসাধ্য পরিশ্রম করেন। কিন্তু তাতেও ভাগ্যের সাহায্য পান না। এমনটা হলে, একটি কালো কাপড়ের মধ্যে এক টুকরো ফটকিরি বেঁধে দরজায় ঝুলিয়ে রাখতে পারেন। এর ফলে নেতিবাচক শক্তির প্রভাব কমিয়ে ভাগ্যের বিকাশ ঘটে বলে বিশ্বাস।

২) আরও পথ বলছে বাস্তুশাস্ত্র। স্নানের ঘরে একটি বাটিতে ফটকিরি রেখে দিন। প্রতি মাসে একবার করে ফটকিরি বদলে দিতে হবে। বাড়ির মধ্যে থাকা নেতিবাচক শক্তিকে ওই ফটকিরি শুষে নেয় বলেই বিশ্বাস।

৩) তৃতীয় পদ্ধতিতে ফটকিরির একটা বড় টুকরো গুঁড়ো করে নিন। সেটা ঘরের বিভিন্ন কোনায় ছড়িয়ে রাখুন। এর ফলে ঘরে কোনও রকম অশুভ বা নেতিবাচক শক্তির প্রভাব পড়বে না বলে বিশ্বাস।

৪) আপনি যদি ‘নজর লাগা’য় বিশ্বাসী হন তবে পা থেকে মাথা পর্যন্ত সাত বার একটি ফটকিরি ঘষতে পারেন। এর পরে ওই ফটকিরির টুকরোটি আগুনে পুড়িয়ে ফেলতে হবে। এর ফলে কারও নজর লেগে থাকলে তা থেকে মুক্তি মেলে বলে বিশ্বাস।

৫) অনেকেই ঘুমের মধ্যে ভয়ঙ্কর স্বপ্ন দেখেন। বলা হচ্ছে, শোওয়ার সময়ে মাথার পাশে এক টুকরো ফটকিরি রাখলে ভাল ফল মেলে। এর ফলে চারপাশের নেতিবাচক শক্তিকে ফটকিরি টেনে নেয় বলে বিশ্বাস। আর তার জন্যই ঘুমে ব্যাঘাত ঘটে না।

Related Posts

প্রত্যেক শনিবার হনুমানজির কাছে উৎসর্গ করুন এই জিনিসগুলো, আপনি সমস্ত বাধা বিপত্তি থেকে মুক্তি পাবেন

আপনারা সকলেই মানেন যে শনিবার দিনটি শুধুমাত্র শনি দেবকেই উৎসর্গ করা হয়। কিন্তু আপনারা যদি শনিবারে  হনুমানের উপাসনা করেন,তাহলে হনুমান এবং শনি দেব দুজনই একসাথে সন্তুষ্ট হবেন।…

এই সাধরণ নিয়মে হনুমানজির পুজো করলে কেটে যাবে সমস্ত সংকট, দূর করবে কু-দৃষ্টির প্রভাব

রামের ভক্ত ভগবান হনুমানকে সমস্ত সমস্যা থেকে উদ্ধা’র করে বলে হনুমানজিকে সংকট মোচন দেবতা বলে মনে করা হয়। সপ্তাহের প্রতিটি দিন কোনও না কোনও দেবতার উদ্দেশ্যে উত্সর্গীকৃত।…

মঙ্গলবারে হনুমানজির উদ্দেশ্যে ভক্তিভরে শুধু এইটুকু নিয়ম করুন জীবন পুরোপুরি বদলে যাবে

হিন্দুশাস্ত্রে তেত্রিশ কোটি দেব দেবীর কথা উল্লেখ আছে। আর এই প্রত্যেক দেব দেবীর আরাধনার একটি নির্দিষ্ট তিথি রয়েছে। আমাদের সপ্তাহের প্রত্যেকটি দিনই কোন না কোন দেব দেবীর…

শৈশব কাল থেকে সন্তানদের প্রতি বাবা মায়ের যে ১০ টি ভুলের কারণে পরে আফশোস করতে হয়

ঈশ্বর মানুষের কাছে সব সময় থাকতে পারেন না বলেই তার পরিবর্তে তিনি জগতে বাবা-মাকে পাঠিয়েছেন।প্রত্যেক বাবা-মার কাছে তাদের শ্রেষ্ঠ উপহার তাদের সন্তান। প্রত্যেক অভিভাবকরাই চায় জীবনের সেরা…

মা লক্ষ্মীকে সন্তুষ্ট করতে এই উপায় গুলো মেনে চলুন কোনদিনও আপনার সংসারে কোন কিছুর অভাব থাকবে না

মা লক্ষ্মীকে সন্তুষ্ট করে জীবনে কখনও অর্থের অভাব হয় না এবং জীবন সুখের সাথে চলে যায়। এটি বিশ্বাস করা হয় যে মা লক্ষ্মী থাকেন সেই বাড়িতে সর্বদা সুখ…

ছোট ছোট যে ভুলের কারণে মা লক্ষ্মী রুষ্ট হন,সংসারে আসে দরিদ্রতা অভাব-অনটন! জেনে নিন তার প্রতিকার

একটি খালি বাড়িতে যখন একটি পরিবার একত্রিত ভাবে বসবাস করতে শুরু করে একটি পরিবার একটি করে তোলে। হিন্দু ধর্ম সম্পর্কে কথা বলার সাথে সাথে পরিবারের ভালবাসা, বাস্তুও…

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *